ব্লগ সাইটে গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়

আপনার যদি একটি ব্লগ সাইট বা একটি ওয়েব সাইট থাকে তাহলে নিশ্চয় গুগল এডসেন্স কি? এবং গুগল এডসেন্স কিভাবে কাজ করে জেনে থাকবেন। আমরা যারা ব্লগার আছি বা ব্লগিং করে থাকি অথবা যারা ব্লগিং করছে তারা কিভাবে ইনকাম করছে?

এতক্ষণে আমার কথা দ্বারা হয়তো বুজে গিয়েছেন যাদের ব্লগ সাইট আছে তারা কিভাবে ইনকাম করে। হ্যা বন্ধুরা যারা ব্লগিং করে তাদের বেশির ভাগ ইনকাম করে গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে।

আপনার যদি একটি ব্লগ সাইট থাকে এবং আপনিও যদি গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে ইনকাম করতে চান এক্ষেত্রে আপনার প্রথমে প্রয়োজন হবে গুগল এডসেন্স অনুমোদন এর। আপনি যদি ব্লগ সাইট বা ওয়েব সাইট থেকে গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে আয় করতে চান তবে আপনাকে কিছু নিয়ম মেনে আপনার ব্লগ সাইট এর জন্য গুগল এডসেন্স এর জন্য আপিল করতে হবে।

কিন্তু অনেকেই সফল আবার অনেকেই হাজার বার চেষ্টা করেও গুগল এডসেন্স পাচ্ছেন না। আজকে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো ব্লগ সাইট এর জন্য গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়

আশা করি এই আর্টিকেল টি আপনার অনেক কাজে আসবে। সুতারাং এই আর্টিকেল টি মনোযোগ সহকারে পড়ুন এবং এই নিয়ম গুলো মনে গুগল এডসেন্স এর জন্য আপিল করলে ১০০% আপনার ওয়েব সাইট টি গুগল এডসেন্স অনুমোদন পাবে।

গুগল এডসেন্স আবেদন করার পূর্বে করনীয় কি?

আমরা প্রথমেই যেই ভুলটা করে থাকি। ব্লগ সাইট খুলেই কয়েকটা এলো- মেলো পোস্ট পাবলিশ করেই গুগলের কাছে এডসেন্স এর জন্য আবেদন করে থাকি। এক পর্যায়ে কিছু দিন পর গুগল যে কোন একটা কারন দেখিয়ে রিজেক্ট করে দিয়ে থাকে।

কিন্ত না, গুগল এডসেন্স পাওয়া এতটাও সহজ না। গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য কিছু নিয়ম আছে সেগুলো অনুসরন করলে খুব সহজেই গুগল এডসেন্স পাওয়া যাই নতুবা গুগল বার বার রিজেক্ট করবে।

গুগল এডসেন্স আবেদন এর পূর্বে এই টিপস গুলো অনুসরণ করলে শতভাগ নিশ্চিত থাকেন আপনি সফল হবেন। নিচে টিপস গুলো দেওয়া হলো।

  • কাস্টম ডোমেইন (Custom Domain)

গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য কাস্টম ডোমেইন অনেক বড় ভূমিকা পালন করে থাকে। বেশির ভাগ ব্লগারগন সাব ডোমেইন (blogspot.com) বা ফ্রি ডোমেইন (.tk) (.ml) (.cf) (.free) দিয়ে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করে থাকেন। যার জন্য গুগল এডসেন্স টিম সরাসরি তাদের রিজেক্ট করে দেয়। একটা সময় ছিলো সাব ডোমেইন দিয়ে সহজেই গুগল এডসেন্স পাওয়া যেত।

এই পোস্ট গুলো আপনার ভালো লাগতে পারে——

কিন্তু ইদানিং সাব ডোমেইন দিয়ে গুগল এডসেন্স পাওয়া অনেক কষ্টকর। এজন্য গুগল এডসেন্স অনুমোদন এর জন্য একটা ভালো মানের টপ লেভেল ডোমেইন (.com) (.net) (.org) (.info) (.xyz) ক্রয় করতে হবে।

  • ব্লগ ডিজাইন ( Blog Design)

গুগল এডসেন্স অনুমোদন এর জন্য সাইটের ডিজাইন অতি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ওয়েব সাইটের থিম অবশ্যই ইউজার ফ্রেন্ডলি হতে হবে এবং ব্লগের পাঠকরা যেন সহজেই পোস্ট পড়তে পারে এমন হালকা – পাতলা ডিজাইন করতে হবে।

এছাড়াও সাইটের স্পিড অতি দ্রুত হতে হবে। তা না হলে ভিজিটর পাবেন না। ভিজিটর না পেলে এডসেন্স পেতে অনেক বেগ পেতে হবে।

এজন্য সব সময় ব্লগের ডিজাইন হালকা রাখতে হবে। এবং সাইটের স্পিড অতি গতি সম্পন্ন হতে হবে। গুগল এডসেন্স জন্য কখনোই সাইট ভারী করা যাবে না।

  • ব্লগের বয়স ( Domain Age)

গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য ব্লগের বয়স একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়৷ তবে এডসেন্স পাওয়ার জন্য নির্ধারিত কোন বয়স সিমা নাই।

গুগল এডসেন্স পওয়ার জন্য ডোমেইন এর বয়স যখন দুই থেকে তিন মাস হবে তখন আবেদন করতে হবে।

আপনার সাইট তৈরির ৬ মাস পর এডসেন্স এর জন্য আবেদন করবেন। তাহলে শতভাগ নিশ্চিত হতে পারবেন গুগল আপনাকে এডসেন্স অনুমোদন দিবে।

  • সার্চ ইঞ্জিন ফ্রেন্ডলি ওয়েবসাইট

গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য সার্চ ইঞ্জিন ফ্রেন্ডলি ওয়েবসাইট অনেক বড় ভূমিকা পালন করে থাকে। এর জন্য আপনার ওয়েবসাইট টি সার্চ ইঞ্জিন ফ্রেন্ডলি তৈরি করতে হবে।

সার্চ ইঞ্জিন ফ্রেন্ডলি ওয়েবসাইট অতি দ্রুত গুগল এডসেন্স পেতে সহযোগিতা করবে।

এর জন্য গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য ওয়েব সাইটে অন পেজ এসইও এর দিকে গুরুত্ব দিতে হবে।

  • পর্যাপ্ত আর্টিকেল পাবলিশ

আমি সব সময় একটা কথা বলি গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য কনটেন্ট হলো মূখ্য ভূমিকা পালন করে। আপনার ওয়েবসাইটে যত বেশি ভালো মানের আর্টিকেল থাকবে তত বেশি ভিজিটর পাবেন।

সুতারাং আপনাকে ভালো মানের আর্টিকেল পাবলিশ করে যেতে হবে।

যখন আপনার ওয়েব সাইটে ২৫/৩০ টি ভালো মানের আর্টিকেল থাকবে তখন গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে হবে। তাহলে গুগল আপনাকে রিজেক্ট করবে না।

একটি কথা না বললেই নই, এডসেন্স এর আবেদন এর পূর্বে খেয়াল রাখবেন প্রতিটি ক্যাটাগরিতে যেন ৫ টির অধিক আর্টিকেল হতে হবে।

  • প্রতিটি আর্টিকেলে পর্যাপ্ত কনটেন্ট

প্রতিটি আর্টিকেল পাবলিশ করার পূর্বে অবশ্যই পরিমান মত কনটেন্ট লেখা থাকতে হবে। শুধু মাত্র ওয়েবসাইটে ২৫/৩০ টি আর্টিকেল থাকলেই গুগল আপনাকে এডসেন্স দিবে না।

এডসেন্স পাওয়ার জন্য প্রতিটি আর্টিকেলে কমপক্ষে ৬০০ থেকে ৭০০ ওয়ার্ড এর ভালো মানের কনটেন্ট লেখা থাকতে হবে।

আপনার লেখার মান যত ভালো হবে এবং কনটেন্ট যত বড় হবে গুগল এডসেন্স পাওয়া তত বেশি সহজ হয়ে যাবে।

  • গুগল সার্চ ইঞ্জিন হতে ভিজিটর

আপনি তখনই গুগল এডসেন্স এর জন্য আশা করতে পারবেন যখন আপনার ব্লগে বা ওয়েবসাইটে গুগল সার্চ ইঞ্জিন থেকে অর্গানিক ভিজিটর আসবে।

যে ওয়েবসাইটে গুগল সার্চ ইঞ্জিন থেকে যত বেশি ভিজিটর পাবে। সেই ওয়েব সাইটের জন্য গুগল এডসেন্স পাওয়া তত বেশি সহজ হয়ে যাবে।

সার্চ ইঞ্জিন থেকে ভিজিটর নেওয়ার জন্য আপনাকে ভালো মত এসইও করতে করতে হবে এবং আপনার ওয়েব সাইট কে গুগল সার্চ ইঞ্জিন এর প্রথম পাতাই নিয়ে আসতে হবে।

আপনার ওয়েব সাইটে যদি দৈনিক ২০০ থেকে ২৫০ এর মত ইউনিক ভিজিটর আসে। তাহলে আপনি শতভাগ নিশ্চিত থাকতে পারেন গুগল আপনাকে গুগল এডসেন্স অনুমোদন দিবে।

  • কিছু গুরুত্বপূর্ণ পেজ

গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য আপনার ব্লগে বা ব্লগ সাইটে কিছু গুরুত্বপূর্ণ পেজ থাকতে হবে। যেমন, About Us, Contact Us, Privacy Policy, Sitemap ইত্যাদি।

গুগল এডসেন্স এর রুলস অনুযায়ি ব্লগে গুগল এডসেন্স পাওয়ার জনয় প্রাইভেসি পলিসি পেজ থাকতে হবে।

কিন্তু গুগল এডসেন্স এর জন্য আমরা বাকি পেজ গুলো রাখবো, যাতে করে গুগল সহজেই আমাদের ব্লগ সম্পর্কে ধারনা নিতে পারে।

  • অন্য কোন বিজ্ঞাপন ব্লগ সাইটে ব্যবহার না করা

আপনার ব্লগ সাইটে যদি অন্য কোন থার্ড পার্টি এড নেটওয়ার্ক থাকে তাহলে গুগল এডসেন্স আবেদন এর পূর্বে তা সরিয়ে ফেলতে হবে।

ব্লগে অন্য কোন এড নেটওয়ার্ক থাকলে গুগল এডসেন্স অনুমোদন দিবে না।

কারন, গুগল তাদের এড নেটওয়ার্কের অন্য কোন এড নেটওয়ার্ক এর মিশ্রন পছন্দ করে না।

কিন্তু এডসেন্স অনুমোদন এর পরে থার্ড পার্টি কিছু এড নেটওয়ার্ক ব্যবহার করতে পারবেন। তবে এটিও ঝুকিপূর্ণ।

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায়

আপনি যদি উপরের সব গুলো রুলস ঠিক মত পড়েন এবং সেগুলো ফিল আপ করেন। এক্ষেত্রে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য আরো কিছু রুলস এগুলো নিচে দেওয়া হলো

  • প্রতিদিন নতুন কনটেন্ট লেখা।
  • ভালো মানের কনটেন্ট লেখা।
  • এসইও ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল পাবলিশ করা
  • ইউনিক ভিজিটর।
  • গুগল এডসেন্স এর পলিসি অনুসরন করা।

উপসংহার:

আমরা যে পৃথিবীতে বসবাস করি তার সব কিছুই নিয়ম মেনে চলে। কেউ নিয়মের বাহিরে না। ঠিক তেমনি গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য কিছু নিয়ম অনুসরন করতে হবে।

যদি আপনি নিয়ম এর বাহিরে কাজ করেন তাহলে কখনোই সফল হতে পারবেন না। ঠিক তদ্রুপ গুগল এডসেন্স এর নিয়ম অনুসরন না করলে গুগল এডসেন্স পাবেন না।

আমরা উপরে গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য যতগুলো নিয়ম অনুসরন করার প্রয়োজন, তার সব গুলোই আলোচনা করা হয়েছে।

সুতারাং আপনি এতক্ষণে হয়তো বুজে গিয়েছেন গুগল এডসেন্স অনুমোদন পাওয়ার জন্য কি কি করতে হবে।

Share on:
Avatar

আমি নাসিম পারভেজ, এই সাইটটির প্রতিষ্ঠাতা। এই সাইটে টিপস & ট্রিকস সহ অনলাইন ইনকাম, ফ্রি ইন্টারনেট অফার ছাড়াও আরো টেকনোলজি বিষয়ের উপর সঠিক ও নির্ভুল তথ্য দেওয়া হয়।

Leave a Comment