অনলাইন ইনকাম: গেম খেলে টাকা আয় মাসে $300 ডলার

গেম খেলে টাকা আয়, কথাটা শুনতে হাস্যকর মনে হলেও এখন বর্তমান সময়ে অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয় করা সম্ভব। অনেকেই লুডু খেলে টাকা আয় করার জন্য গুগল বা ইউটিউবে অনুসন্ধান করে থাকে। কিন্তু এগুলো থেকে কত টাকা ইনকাম করা সম্ভব? মাসে $10 এর বেশি না।

যাইহোক আজকে আমরা লুডু খেলে হালকা ইনকাম করার এপস গুলো নিয়ে আলোচনা করবো না। আজকে আমরা আলোচনা করবো যারা শখের বসে গেম খেলতে পছন্দ করে কিংবা গেম খেলার প্রতি আসক্তি আছে, তারা কিভাবে তাদের শখকে কাজে লাগিয়ে অনলাইন থেকে ভালো পরিমান একটা প্রফিট ইনকাম করতে পারেন এসব নিয়ে।

অফলাইনে কিংবা অফলাইনে গেম খেলাটা একটি শখ মাত্র। স্কুল – কলেজের ছাত্র ছাত্রীরা গেম খেলতে বেশি পছন্দ করে। স্কুল কলেজের এমন সব ছাত্র ছাত্রী আছে তারা গেম খেলার জন্য স্কুল কলেজ ফাকি দিতেও দ্বিধা বোধ করেন না। তারা গেম খেলতে – খেলতে একটা সময় গেমের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ে এবং একটা সময় গেম এক্সপার্ট হয়ে উঠে।

একটা সময় ছিলো কম্পিউটারে বা মোবাইলে যে গেম গুলো ছিলো সেগুলো শুধু মাত্র একা – একা খেলা যেতো। কিন্তু বর্তমানে অনলাইনে বেশ কিছু গেম রয়েছে যেগুলো টিম করে খেলা যাই। এসব গেমের মধ্যে জনপ্রিয় ২ টি গেম হলো ফ্রি ফায়ার ( Free Fire) এবং পাবজি ( Pubg)

কে কে গেম খেলে ইনকাম করতে পারবে?

অনলাইন থেকে আয় করার ক্ষেত্রে আমি সবসময় একটা কথা বলে থাকি, অনলাইন থেকে ইনকাম করার সহজ কোন উপায় নেই। অফলাইন বলেন আর অনলাইন বলেন অনলাইন থেকে আয় করার সহজ কোন মাধ্যম নেই৷

টাকা আয় করার জন্য প্রয়োজন আপনার কঠোর পরিশ্রম এবং ঐ কাজের উপর দক্ষতা। টাকা ইনকাম করার জন্য আপনার দক্ষতা থাকতে হবে।

অবিজ্ঞতা ছাড়া যেমন আপনি বাস্তব জীবনে টাকা ইনকাম করতে পারবেন না ঠিক তেমনি অনলাইন থেকে ইনকাম করার জন্য প্রয়োজন আপনার যে কাজটি করবেন ঐ কাজের উপর দক্ষতা।

অতএব গেম খেলে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনার আগে গেমের উপর ভালো অবিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে।

একটা কথা সব সময় মাথাই রাখতে হবে কেউ আপনাকে ফ্রিতে টাকা দিবে না। যে আপনাকে টাকা দিবে সে কোন না কোন ভাবেই আপনাকে দিয়ে কাজ করিয়ে নিবে। একটা কথা ঠান্ডা মাথাই চিন্তা করেন, কেন কোন প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তি আপনাকে টাকা দিবে? নিশ্চয় কোন না কোন কাজ সে আপনাকে দিয়ে করিয়ে নিচ্ছে।

কোন বিনিময় ছাড়া কেউ আপনাকে এক পয়সাও দিবে না। সুতারাং গেম খেলেও টাকা ইনকাম করার জন্য আপনাকে আগে গেমার এক্সপার্ট হতে হবে। আপনি যদি একজন গেমার এক্সপার্ট হতে পারেন তবেই আপনি গেম খেলে ইনকাম করতে পারবেন।

গেম খেলে ইনকাম করার জন্য যা প্রয়োজন হবে

গেম খেলে না এমন মানুষ বিরল। তবুও আপনি যদি গেম খেলতে না পারেন বা পছন্দ না করেন, এই আর্টিকেল টি পড়েই গেম খেলে ইনকাম করতে পারবেন না। গেম খেলে ইনকাম করার জন্য প্রথমে আপনাকে বিভিন্ন গেম খেলে গেমিং এক্সপার্ট হতে হবে।

আপনি যদি একজন গেমার না হন বা গেম খেলতে না জানেন বা আপনার যদি গেম খেলার কোন অবিজ্ঞতা না থাকে তাহলে কোন ভাবেই আপনি গেম খেলে টাকা আয় করতে পারবেন না।

আগেই বলেছি কেউ আপনাকে ফ্রিতে টাকা দিবে না। কোন প্রতিষ্ঠান তখনই আপনাকে টাকা দিবে যখন আপনার থেকে সে কিছু পাবে। সুতারাং এখানে আপনার দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে প্রতিষ্ঠান ইনকাম করবে এবং সেই ইনকামের কিছু অংশ আপনাকে দিবে।

আপনি যদি একজন ভালো মানের গেমার না হন তবে আগে ভালে করে গেমিং করা শিখেন আর যারা গেমিং ভালো করেন বা গেমিং এক্সপার্ট আছেন তারা আজ থেকেই কাজ শুরু করতে পারবেন।

গেম খেলে ইনকাম করার জন্য নিচের বিষয় গুলো লাগবে——

  • গেম খেলার প্রতি অবিজ্ঞতা বা পারদর্শী হতে হবে।
  • গেমের প্রতি আগ্রহ না থাকলে ইনকাম করতে পারবেন না। সুতারাং গেম খেলে ইনকাম করার জন্য গেমের প্রতি আগ্রহ থাকতে হবে।
  • গেম খেলে ইনকাম করার জন্য আপনার একটি পিসি থাকতে হবে তবে একটি ভালো মানের মোবাইল থাকলেও ইনকাম করতে পারবেন।
  • গেম খেলে ইনকাম করার জন্য ইন্টারনেট কানেকশন থাকতে হবে।
  • গেম খেলে ইনকাম করার জন্য ভিডিও এডিট এর ব্যাসিক ধারনা থাকতে হবে।

গেম খেলে অনলাইন থেকে ইনকাম করার উপায়

একজন ভালো গেমার এর জন্য অনলাইন থেকে ইনকাম করার অসংখ্য উপায় আছে। আপনি যদি একজন ভালোমানের গেমার হয়ে থাকেন তাহলে খুব সহজেই অনলাইন থেকে ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন। এখন আমরা গেম খেলে ইনকাম করার জন্য জনপ্রিয় ০১ টি উপায় শেয়ার করবো। যেখান থেকে একজন ভালো গেমার মাসে ভালো একটা ইনকাম জেনারেট করতে পারবে। এবং যদি আপনাদের উৎসাহ পাই পরবর্তীতে আরও কিছু ট্রিকস নিয়ে হাজির হবো ইনশাআল্লাহ।

গেমিং ইউটিউবার হয়ে ইনকাম

একজন ভালো মানের গেমার এর জন্য অনলাইন থেকে ইনকাম জেনারেট করার জন্য সহজ ও জনপ্রিয় মাধ্যম গুলোর মধ্যে অন্যতম হলো ইউটিউব।

ইউটিউবে গেমারদের প্রচুর ডিমান্ড আছে এবং সেই সাথে গেমিং ভিডিও গুলো মিলিয়ন এরও বেশি ভিউ হয়ে থাকে। সব থেকে বড় কথা হলো অন্য সব ইউটিউবারদের মত গেমিং ইউটিউবারদের তেমন কোন মেধা খরচ করতে হয় না।

একজন টেক ইউটিউবার যেসব টেকনিক অবলম্বন করে ভিডিও তৈরি করে তেমন কোন টেকনিক অবলম্বন করতে হয় না গেমিং ইউটিউবারকে। আপনি যদি একজন দক্ষ গেমার হয়ে থাকে তাহলে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে গেমের ভিতরের জটিল ও কঠিন বিষয় গুলো কিভাবে খেলতে হয় তার স্কিন রেকর্ড করে ইউটিউবে আপনার চ্যানেলে আপলোড করে ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

একজন গেমার সাধারণত ০৩ টি উপায়ে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবে।

প্রথমত, আপনি যদি একজন ভালো মানের অবিজ্ঞ সম্পূর্ণ খেলোয়ার হয়ে থাকেন, তাহলে গেমের ভিতরের জটিল ও কঠিন বিষয় গুলো কম্পিউটারের বা মোবাইলের স্কিন রেকর্ড করে ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন।

এই ধরনের ভিডিও গুলো অনেক বেশি ভিউ হয়, কারন মানুষ ইউটিউবে যখন কিছু অনুসন্ধান করে তখন সে জটিল ও কঠিন বিষয় গুলো নিয়েই সার্চ করে। এক্ষেত্রে দেখা যাবে আপনি যদি গেমের ভিতরের কটিন বিষয় গুলো যদি সফল ভাবে খেলতে পারেন তাহলে আপনার ভিডিও মূহুর্তের মধ্যেই ভাইরাল হবে।

দ্বিতীয়, আপনি চাইলে গেম রিভিউ করে ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে মার্কেটে কোন নতুন গেম গুলো আসতেছে।

এবং আপনি নতুন গেম গুলো রিভিউ করে ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে বেশি বেশি মার্কেটে নজরদারি করতে হবে।

তৃতীয়, উপরের দুইটি থেকে তৃতীয় টি আমার কাছে বেশি মজাদার। কারন এই ধাপে আপনি গেম খেলার সাথে সাথে কমেন্ট্রি করতে পারেন। আপনি গেম খেলার সাথে সাথে কোথায় কি হতে চলেছে, এরপর কি হবে, কোথায় কি আছে। স্কিন রেকর্ড এর সাথে সাথে এগুলো নিয়ে কমেন্ট্রি করে ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন

এতে করে এক দিকে যেমন প্রচুর বিনোদন পাবেন, খেলার শকও পূরন হবে এমনকি এই টাইপের ভিডিওতে প্রচুর পরিমানে ভিউ হয়।

গেমিং ভিডিও আপলোড করে ইউটিউব থেকে কত টাকা ইনকাম করা সম্ভব?

ইউটিউবে গেমিং ভিডিও আপলোড করে ইউটিউব থেকে কত টাকা আয় করা যাই এর একটি সাধারন ধারনা আপনাদের আপনাদের সামনে তুলে ধরছি।

সাম্প্রতিক সময়ের সবয়েচে বহুল জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেল হলো T-Series এটি ভারতের একটি মিউজিক্যাল চ্যানেল এর পরের স্থান অর্থাৎ দ্বিতীয় স্থানে আছে PewDiePie এটি একটি গেমিং চ্যানেল। PewDiePie চ্যানেলের সাবসক্রাইবার সংখ্যা ১১০ মিলিয়ন। চিন্তা করতে পারেন একটি গেমিং চ্যানেলের সাবসক্রাইবার কত!

আশা করি এতক্ষনে বুজে গেছেন গেমিং চ্যানেল এর জনপ্রিয়তা কত বেশি। আরও একটা তথ্যা আপনাদের সামনে তুলে ধরতেছি PewDiePie শুধু মাত্র গেমিং ভিডিও আপলোড করে এই চ্যানেলের ইনকাম মাসে $500,000।

এছাড়াও ইউটিউবে হাজারো চ্যানেল আছে শুধু মাত্র তারা গেমিং ভিডিও আপলোড করে।

এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে আমি কত ইনকাম করতে পারবো? আমি প্রথমেই বলেছি অনলাইনে আপনাকে কোন প্রতিষ্ঠান ফ্রিতে টাকা দিবে না। অনলাইন থেকে ইনকাম করতে হলে প্রয়োজন কঠোর পরিশ্রম ও ধৈর্য।

আপনি ভিডিও আপলোড করার সাথেই ইনকাম করতে পারবেন না। প্রথমে আপনাকে কয়েক মাস কষ্ট করতে হতে পারে তার পর যখন আপনার ইনকাম শুরু হবে তখন আপনি প্রতি মাসে $৩০০-৫০০ ডলার ইনকাম করতে পারবেন এবং সেই সাথে আরো বলে রাখি আপনার চ্যানেল এর যখন পাবলিসিটি বারবে তখন আপনার ইনকামও বাড়বে।

গেম খেলে ইনকাম করার উপায়

আমি উপরে সবচাইতে জনপ্রিয় এবং সহজ একটি উপায় শেয়ার করেছি। আপনি যদি একজন ভালো গেমার হয়ে থাকেন উপরে প্লাটফর্ম ছাড়াও নিচের এই ০৪ টি সেক্টরে গেমিং নিয়ে কাজ করে ইনকাম করতে পারেন—

  • গেমিং ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করে ইনকাম।
  • Twitch এ গেমিং ভিডিও আপলোড করে ইনকাম।
  • গেমিং টুর্নামেন্ট খেলে ইনকাম।
  • গেম টেষ্টার হয়ে ইনকাম।

শেষ কথা: গেমিং করে ইনকাম করার অনেক গুলো উপায় আছে আজকের পোস্টে আমি শুধু মাত্র গেম খেলে ইউটিউব থেকে কিভাবে ইনকাম করা যাই তার বিস্তারিত আলোচনা করেছি। যদি আপনারা ইউটিউব বাদেও অন্যকোন প্লাটফর্মে কাজ করতে চান, অবশ্যই Comment করে জানাবেন।

আমরা পরবর্তীতে ফ্রী লঠারী খেলে টাকা ইনকাম করার উপায় আমাদের ব্লগে শেয়ার করবো ইনশাআল্লাহ।

আর হ্যা, আপনার যদি কোন ভালো গেমার বন্ধু থাকে তাহলে এই পোস্ট টি তার কাছে শেয়ার করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button